বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

বনজ কুমারের মামলা বাবুল আক্তারকে ৭ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদারের করা মামলায় পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) বাবুল আক্তারের উপস্থিতিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হবে

এদিন তাকে মামলায় গ্রেফতার দেখানোর পর রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ধানমন্ডি থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক শরীফ

তিনি বলেন, বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ধানমন্ডি থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রবিউল ইসলাম বাবুলকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদনসহ সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন

এর আগে ২৭ সেপ্টেম্বর সাংবাদিক ইলিয়াস হোসাইন পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারসহ চার জনের বিরুদ্ধে রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিশেষ ক্ষমতা আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলার অন্য দুই আসামি হলেনবাবুল আক্তারের ভাই মো. হাবিবুর রহমান লাবু (৪৫) বাবা মো. আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া (৭২)

বনজ কুমার এজাহারে উল্লেখ করেছেন যে, তার নেতৃত্বাধীন তদন্ত সংস্থা পিবিআই, চট্টগ্রাম মেট্রা দেশের চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলা তদন্তাধীন থাকাকালে প্রধান আসামি হিসেবে সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আকতারের নাম বেরিয়ে এলে তাকে গ্রেফতার করা হয়। জেলে থাকা বাবুল আকতার মামলার তদন্ত ভিন্নখাতে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ পুলিশ পিবিআইয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য অপর আসামিরা দেশে বিদেশে অবস্থান করে অপরাধমূলক বিভিন্ন অপকৌশল এবং ষড়যন্ত্রের আশ্রয় নেয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাবুল আকতার অন্যান্য আসামিদের প্রত্যক্ষ পরোক্ষ প্ররোচনায় কথিত সাংবাদিক ইলিয়াস হোসাইন সেপ্টেম্বর বিদেশে পলাতক থাকা অবস্থায় তার ফেসবুক আইডি থেকে ইউটিউব অ্যাকাউন্টেস্ত্রী খুন স্বামী জেলে খুনি পেয়েছে তদন্তের দায়িত্বশিরোনামে একটি ভিডিও ক্লিপ আপলোড করেন

এজাহারে আরও বলা হয়, বিভিন্ন মিথ্যা ভিত্তিহীন তথ্যের মাধ্যমে তদন্তাধীন মিতু হত্যা মামলার তদন্তকে বিতর্কিত প্রশ্নবিদ্ধ করাসহ তদন্তকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার লক্ষ্যে উল্লেখিত ভিডিও প্রচার করেন। আসামি ইলিয়াস হোসাইন ভিডিওতে প্রচারিত বক্তব্যে দেশের ভাবমূর্তি এবং দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উস্কানি, বাংলাদেশ পুলিশ এবং পুলিশের বিশেষায়িত তদন্ত সংস্থা পিবিআই বিশেষ করে বাদীর (বনজ কুমার মজুমদার) মানসম্মান সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করেছে। যা দেশের মানুষের মধ্যে এর নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি করে

 এজাহারে ওই ভিডিওতে প্রচারিত বিভিন্ন অভিযোগ খণ্ডন করে বলা হয়, আসামি ইলিয়াসের বক্তব্যের মাধ্যমে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি এবং বাংলাদেশের সঙ্গে বন্ধুপ্রতিম দেশ ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে ক্ষতিগ্রস্ত করার, রাষ্ট্রের হিন্দুমুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণাবিদ্বেষ, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট অস্থিরতা এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপপ্রয়াস করেছে

শুধু মিতু হত্যা মামলার তদন্ত বিচারকাজকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য নম্বর আসামি মো. হাবিবুর রহমান লাবু, নম্বর আসামি আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া নম্বর আসামি বাবুল আকতারের প্রত্যক্ষ পরোক্ষ প্ররোচনায় এবং সার্বিক সহযোগিতায় নম্বর আসামি ইলিয়াস হোসাইন অসৎ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বাংলাদেশ পুলিশ বিশেষায়িত তদন্ত সংস্থা পিবিআই এবং বাদীর মানসম্মান চরমভাবে ক্ষুণ্ন করার জন্য সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ভিত্তিহীন বক্তব্য সহকারে ফেসবুক আইডি ইউটিউব অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ভিডিও ক্লিপ আপলোড করেন

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com
Web Site Designed, Developed & Hosted By ALL IT BD 01722461335