শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

গাইবান্ধায় আসন্ন ২০২০-২০২১ বোরো মৌসুমের বীজ বিপণন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ

মোঃ শাহরিয়ার কবির আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের আওতাধীন ২০২০-২০২১ বিতরণ বর্ষের বোরো মৌসুমের বীজ বিপণন কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি। আজ বৃহস্পতিবার(১৫ অক্টোবর) বিএডিসি বীজ ও গাইবান্ধা সার ডিলার এসোসিয়েশন জেলা শাখা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানের শুরতেই প্রধান অতিথি হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনিকে সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা এবং এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এই স্মারকলিপিটি  পাঠ করে শোনানোর পর এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে হস্তান্তর করেন বিএসডিসি বীজ ও সার ডিলার এসোসিশেয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আওলাদ হোসেন রিটু। স্মারকলিপিতে বিএডিসি বীজ ও সার
ডিলারদের মাধ্যমে গাইবান্ধা জেলাসহ রংপুর অঞ্চলের কুড়িগ্রাম, নীলফামারী ও লালমনিরহাট জেলার বিএডিসি ও সরকারী আমদানীকৃত সকল নন-ইউরিয়া সার সরবরাহ ও বিভিন্ন মৌসুমে নতুন উদ্ভাবিত জাতের উচ্চ ফলনশীল ও হাইব্রিড বীজের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত বীজ সরবরাহের ব্যবসা করাসহ বিএডিসি বীজ আলুর হিমাগার স্থাপনের দাবি জানানো হয়। অনুষ্ঠানে ডিলারদের পক্ষ থেকে সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া সুফলা বীজ ভান্ডারের স্বত্ত্বাধিকারী ডিলার অরুপ রতন দেবের পে-অর্ডার গ্রহণের মাধ্যমে বীজ বিতরণ এবং কৃষক পরিবারের সন্তান কৃষক তানজিমুল ইসলাম জনির কাছে বীজ বিক্রয় করে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি হুইপ।
বিএডিসি বীজ ও সার ডিলার এসোসিয়েশন গাইবান্ধা শাখার সভাপতি মো. তাজমিনুর রহমান কলেস্নালের সভাপতিত্বে বিএডিসি বীজ ও সার বিপণন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বীজ বিপণন রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আসাদুজ্জামান খান, যুগ্ম পরিচালক কৃষিবিদ মোফাজ্জল হোসেন,গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মাসুদুর রহমান,গাইবান্ধা বিএডিসি নির্বাহী পরিচালক চিত্তরঞ্জন রায়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হুইপ বলেন, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বর্তমান সরকারকে কৃষি বান্ধব সরকার হিসেবে গড়ে তুলে কৃষকদের জীবন জীবিকার উন্নয়ন এবং কৃষির উন্নয়নে গুরত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে যাচ্ছেন। এ কারণেই আজ দেশ খাদ্য স্বয়ং সম্পন্ন অর্জন করেছে এবং কৃষকেরও ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটছে।
গাইবান্ধায় বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস পালিত
মোঃ শাহরিয়ার কবির আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর)  গাইবান্ধায় বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিলো হাত ধোয়া প্রশিক্ষণ, সরকারি ও বে-সরকারি শিশু পরিবার সহ জন বহুল এলাকায় সাবান, গেঞ্জি, মাক্স, লিফলেট বিতরণ ও আলোচনা সভা ইত্যাদি। দিবসটি উপলক্ষে এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল‘‘উন্নত স্যানিটেশন নিশ্চত করি, করোনা ভাইরাস মুক্ত জীবন গড়ি’’। এর আগে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরে কর্মসূচীর শুরুতেই হাত ধোয়া প্রদর্শন উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন।
এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসক ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো: আবদুল মতিন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো: সাদেকুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: আবু বকর সিদ্দিক, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: রেজওয়ান আহম্মেদ, সহকারি কমিশনার শাহীন দেলোওয়ার,  এসকেএস সম্বনয়কারি আশরাফ আলী,
গণ উন্নয়ন কেন্দ্রে আফতাব হোসেন প্রমুখ। জেলা প্রশাসক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সময় মতো পদক্ষেপ নেয়ার ফলে  সংকট আর নেই। তিনি বলেন, এ কারনেই আমাদের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে। তিনি আগামী দিনগুলোতে করোনা সংক্রমন রোধে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহবান জানান।
পলাশবাড়ীতে আখিরা নদীর বাঁধ সংস্কার কাজ সমাপ্ত না হতেই বাঁধের সিংহভাগ নদী গর্ভে বিলীন
মোঃ শাহরিয়ার কবির আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে আখিরা নদীর বাম তীরে পূর্ব সর্তকতামূলক তীর সংরক্ষণ কাজ সম্পন্ন না হতেই বাঁধের সিংহভাগ নদী গর্ভে। সংশ্লিষ্ট অফিস সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, গাইবান্ধার বাস্তবায়নে পলাশবাড়ী উপজেলার করতোয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের টেংরা নামক স্থানে আঁখিরা নদীর বাম তীরে ২৫০ মিটার দৈর্ঘ্য পূর্ব সতর্কতামূলক নদীর তীর সংরক্ষণ কাজে ১ কোটি ৬৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট এসও সূত্রে জানা যায়, গাইবান্ধার আব্দুল লতিফ হক্কানী ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে
কাজটি ১লা মার্চ-২০২০ ইং তারিখে পলাশবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ শুভ উদ্বোধন করেন। এলাকাবাসী জানায়, কাজটি শুরু থেকেই অদ্যবধি কত টাকা বরাদ্দ এবং কিভাবে কাজ সম্পন্ন করা হবে এর কোন সাইনবোর্ড দেওয়া হয়নি। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কাজের সুবিধার্থে বাঁধের পাশের্^ থেকেই শ্যালো মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন পূর্বক বাঁধ সংস্কার করায় সম্প্রতি বন্যায় বাঁধের
সিংগভাগ বালু নদী গর্ভে চলে যায়। তারা আরও জানায়, যেভাবে বাঁধের পাশের্^ থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করা হয়েছে তাতে বাঁধের কাজ সম্পন্ন হলে বাঁধটি পূনরায় নদী গর্ভে ধসে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তাই বাঁধ সংস্কারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে এলাকাবাসী জোর দাবী জানান

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com