রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

একই পরিবারের ৩ শিশু করোনা আক্রান্ত

জিটিবি নিউজঃ কক্সবাজার জেলায় লকডাউনের আড়াই মাস অতিক্রান্ত হতে চলেছে কিন্তু কোনোভাবেই কমানো যাচ্ছে না করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কক্সবাজারে এতদিন যুবক ও বয়স্করা আক্রান্ত হলেও বুধবার জেলায় প্রথম একদিনে তিন শিশুর করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্ত শিশুরা উখিয়ার রত্নাপালং ইউনিয়নের একই পরিবারের সদস্য। তাদের বয়স ৬, ১১ ও ১৪ বছর।

বুধবার বিকেলে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে স্থাপিত পরীক্ষাগার থেকে তাদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ এসেছে।

করোনায় আক্রান্ত শিশুদের বাবাও করোনা পজেটিভ হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে। এর ফলে জেলায় এই প্রথম একই পরিবারের তিন শিশুসহ চারজনের করোনোভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, হতভাগা তিন শিশু বাবার মাধ্যমেই আক্রান্ত হয়েছে।

উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রনজন বড়ুয়া করোনা আক্রান্ত তিন শিশুর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, স্বাস্থ্য বিভাগের নিয়ম অনুয়ায়ী তাদের সুচিকিৎসা দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে ল্যাবে গত ২ এপ্রিল থেকে ১৩ মে পর্যন্ত ১৩৩ জনের পজেটিভ এবং ৩০০৫ জনের করোনা নেগেটিভ পাওয়া গেছে। আর জেলায় করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ১২০ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে রামুর একজনের। আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ চকরিয়াতে ৩৬ জন, সদর উপজেলায় ২৭ জন, পেকুয়ায় ২০ জন, উখিয়ায় ১৪ জন, মহেশখালীতে ১২ জন, টেকনাফে ৭ জন এবং রামুতে ৪ জন রয়েছেন। তবে এখনো করোনা মুক্ত রয়েছে কুতুবদিয়া উপজেলা ও ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যাম্প।

তবে এক সপ্তাহ ধরে হঠাৎ করোনা রোগী বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলাবাসীর মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। জেলায় গত ৫ মে ১১ জন, ৬ মে ২ জন, ৭ মে সর্বো্চ্চ ১৯ জন, ৮ মে ৪ জন, ৯ মে ৬ জন, ১০ মে ১০ জন, ১১ মে ১১ জন, ১২ মে ৯ জন এবং ১৩ মে আরো ৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে নয় দিনেই আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ জন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com