বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন

তালতলীতে শিশুকে পিটিয়ে হত্যা আসামী গ্রেফতার

আমতলী সংবাদদাতা বরগুনা : বরগুনার তালতলী উপজেলার সোনাকাটা ইউনিয়নের আমখোলা গ্রামে মাছ চুরির অভিযোগে রবিউল আউয়াল নামের (১১) এক শিশুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শাবলের আঘাতে শিশুটির বাম চোখ কোটরে ঢুকে গেছে। বুধবার দুপরে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে তালতলী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পর পরই মামলার মূল আসামী মীরাজ (২৫) কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।
রবিউল আউয়াল ফরাজি বাড়ি দাখিল মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিল। তার বাবার নাম দুলাল মৃধা। মঙ্গলবার বিকেলে আমখোলা গ্রামের খালপাড় থেকে রবিউল আউয়ালের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ (বুধবার) সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
রবিউলের বাবা দুলাল মৃধা জানিয়েছেন, বাড়ির পাশের লুতরার খালে জাল পেতে মাছ ধরে তাদের প্রতিবেশী মিরাজ। দুই ,দিন আগে তার জালের মাছ চুরি হওয়ায় রবিউলকে সন্দেহ করে সে। ঐদিনই সে জানিয়েছে, রবিউলকে মাছ চুরি করা অবস্থায় পেলে সে মেরে ফেলবে। এ ঘটনার পর গতকাল বিকেলে সোহাগ নামের অপর এক কিশোর আমখোলা গ্রামের খালপাড়ে রবিউল আউয়ালের লাশ পড়ে থাকতে দেখে তার স্বজনদের খবর দেয়। এ সময় রবিউলের বাবা দুলাল মৃধার উপস্থিতিতে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

রবিউলের ফুপাতো বোন সাহিদা বলেন, আমি শুনছি যে, আমার ফুপাতো ভাই রবিউল আউয়াল নাকি মাছ ছাড়াইতে গেছে। তার পরে মিরাজ নামের একটা ছেলে, ও ওরে (রবিউল) শাবল দিয়া পিটান মারছে (পিটিয়েছে)। শাবল দিয়া পিটান মাইর্যা ওর একটা চোখ ডাবাইয়া (ডাবিয়ে) ফালাইছে। কপালেরও অর্ধেক ফালাইয়্যা দিছে।
তালতলী থানার ওসি বাবুল আকতার জানিয়েছেন, গতকাল তারা লাশ উদ্ধার করলেও মামলা হয়েছে আজ দুপুরে। শিশুটির বাবা দুলাল মৃধা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। তাৎক্ষনিকভাবে অভিযান চালিয়ে মূল আসামী মিরাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক জানিয়েছেন, আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com
Web Site Designed, Developed & Hosted By ALL IT BD 01722461335