শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

নওগাঁর মহাদেবপুরে বিনামূল্যে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত

আইনুল ইসলাম, মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি ঃ নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার চাঁন্দাশ ইউনিয়ন পরিষদে বিনামূল্যে একদিনের চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত হয়েছে। চাঁন্দাশ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদান নবী রিপনের উদ্যোগে ও ইস্পাহানী ইসলামিয়া চক্ষু ইন্সটিটিউট এন্ড হাসপাতাল, নওগাঁর সার্বিক সহযোগিতায় ১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার চাঁন্দাশ ইউনিয়ন পরিষদে বিনামূল্যে দিনব্যাপী এ চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চক্ষু রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন নওগাঁ ইস্পাহানী ইসলামীয়া চক্ষু ইন্সটিটিউট এন্ড হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মীর নাজমুস সাদাত, ক্যাম্প অর্গানাইজার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, জুনিয়র অপটোমেট্রিক মোঃ এনামুল ইসলাম, জুনিয়র স্টাফ নার্স মোছাঃ সম্পা আক্তার, মোছাঃ রোজিনা খাতুন, শিল্পী রানী মূর্মূ, উদয়ন কুমার বড়ুয়া প্রমূখ। এতে প্রায় ২শ চক্ষু রোগির ফ্রি চিকিৎসা এবং ৩০ জন রোগির ছানি অপারেশন করা হয়।

নওগাঁর মহাদেবপুরে প্রভাবশালী ভূমিদস্যূর অত্যাচারে দোকান ঘর মেরামত করতে পারছেন না একটি অসহায় পরিবার

আইনুল ইসলাম, মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি ঃ নওগাঁর মহাদেবপুরে প্রায় ৩০ বছর ধরে ব্যবসা করে আসার পরও একটি প্রভাবশালী ভূমিদস্যুর অত্যাচারে ওই দোকান ঘরটি মেরামত করতে পারছেন না একটি অসহায় পরিবার। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে মহাদেবপুর বাসষ্ট্যান্ডে সরকারের কাছ থেকে লিজ নেয়া ৮০৮ দাগে ০.২৫ শতক জমিতে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন উপজেলা সদরের দুলাল পাড়ার মৃত মফিজ উদ্দীনের পুত্র মোঃ জিল্লুর রহমান।

সম্প্রতি সময়ে জরাজীর্ণ দোকান ঘরটি মেরামত করতে গেলে পার্শ্ববতী জমির মালিক ঘরটি তাদের ৫৪৮ দাগে অবস্থিত দাবী করে বাঁধা প্রদান করে আসছে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীর ছেলে মোঃ গোলাম রাব্বানী জানান, সম্প্রতি অতি বৃষ্টিতে তাদের দোকান ঘরের দেয়ালটি ধসে পড়ায় তারা সে দোকানটির মেরামত শুরু করলে মৃত সিরাজ উদ্দীনের পুত্র মোঃ শাহআলম কবির সোহাগ ও আলমগীর কবির শামীম কাজে বাঁধা প্রদান করে। তিনি আরো জানান, তারা দুর্ধর্ষ প্রকৃতির লোক, এলাকায় তারা ভূমিদুস্যু হিসেবে পরিচিত।

তারা নানা অজুহাতে আমাদের জায়গাটি দখলে নেয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা সবরকম নিয়ম-নীতি মেনেই সরকারের কাছ থেকে লীজ নিয়ে ওই সম্পতিতে দোকানঘর নির্মাণ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। তাদের দোকানঘরটি কোনো মতেই ৫৪৮ দাগের নয়। এটি ৮০৮ দাগের সম্পত্তি। পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ী সুজন কুমার, জীবন দাস, আতোয়ার রহমান সহ অনেকেই জানান, ওই দোকানে দীর্ঘদিন থেকে রাব্বানী তার ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। পজিশনটি তাদের বলে আমরা জানি। এ ব্যাপারে বাসষ্ট্যান্ড বণিক সমিতির সভাপতি মনিরুল হক মনি জানান, গোলাম রাব্বানী উক্ত দোকান ঘরে দীর্ঘদিন থেকে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com