শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০১:৫৩ অপরাহ্ন

গোবিন্দগঞ্জে যুবক হত্যার অভিযোগে বিক্ষুদ্ধ জনতা বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : পাওনা টাকা ফেরৎ দেয়ার কথা বলে ডেকে এনে এক যুবককে হত্যার অভিযোগ তুলে জঙ্গী স্টাইলে পেট্রোল এবং গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে একটি বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

 গতকাল শনিবার সকালে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র সংলগ্ন বাড়ীটির পিছনের ঘরের চালের সাথে গলায় ফাঁস লাগানো এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধারের পর পার্শ্ববর্তী কোচাশহর ইউনিয়নের মৃতের স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে আগুন লাগিয়ে তান্ডব চালায় বলে এলাকার লোকজন অভিযোগ করেছেন।

মৃতের স্বজন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মহিমাগঞ্জ স্টেশন রোড এলাকার বাসিন্দা রংপুর চিনিকলের অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী মোজাফ্ফর রহমানের পুত্র মশিউর রহমানের কাছ থেকে চাকুরীর জন্য দেয়া বেশ কিছু টাকা পেতেন পার্শ্ববর্তী কোচাশহর ইউনিয়নের মুকুন্দপুর গ্রামের মৃত আয়েজ উদ্দিনের পুত্র আব্দুর রহমান ওরফে বানু (৪৫)। এ নিয়ে তাদের মধ্যে একাধিকবার ঝগড়া-বিবাদও হয়েছে। বানুর স্বজনরা অভিযোগ করেছেন, গত শুক্রবার টাকা ফেরৎ দেয়ার কথা বলে তাকে মোবাইল ফোনে ডেকে আনা হয় মশিউরের মহিমাগঞ্জের বাড়িতে। এরপর গতকাল শনিবার সকালে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রের দেয়াল সংলগ্ন মশিউরের বাড়ির পিছনের ঘরের চালার সাথে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শতশত মানুষের সাথে মৃতের স্বজনরা এসে মৃতদেহ সনাক্ত করে তাকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে চিৎকার করে অভিযুক্তের বাড়ি-ঘরে ভাংচুর শুরু করে। এরই এক পর্যায়ে হঠাৎ করে পেট্রোল জ্বালিয়ে ও বাইরে থেকে গ্যাস সিলিন্ডার এনে বাড়ির সব ঘরে আগুন লাগিয়ে দিলে নিমিষেই সম্পূর্ণ বাড়িটি ভষ্মিভূত হয়ে যায়। পরে গোবিন্দগঞ্জ ও সোনাতলা থেকে ফায়ার সার্ভিসের দু’টি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকার আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ছাড়াও অতিরিক্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় তান্ডব সৃষ্টিকারী দুই যুবককে আটক করলেও পরে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়।

 এলাকার লোকজন সঠিক তদন্তের মাধ্যমে হত্যা রহস্যের উন্মোচন ও উভয় ঘটনার বিচার দাবী করেছেন। বিকেলে এ রিপোর্ট লেখাকালীন এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে গোবিন্দগঞ্জ থানা সূত্র জানিয়েছে।

 

গোবিন্দগঞ্জে বই চোরকে গ্রেফতারের দাবীতে নাগরিক কমিটির মানববন্ধন

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা ) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সরকারী বই চুরি । প্রকৃত চোরকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে গোবিন্দগঞ্জ নাগরিক কমিটির বিশাল মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে।গত ১৪ এপ্রিল শনিবার সকাল ১১ টায় গোবিন্দগঞ্জ নাগরিক কমিটির আহবানে থানা চৌমাথা মোড়ে গোবিন্দগঞ্জে সম্প্রতি ১০ মেঃ টনঃ ২০১৮ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্য পুস্তুক চুরি করে কালোবাজারে বিক্রি করায় সংশ্লিষ্ট মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ কে এম মামুনুর রশিদ এবং সহযোগী প্রকৃত বই চোর দেরকে সনাক্ত  পূর্বক গ্রেফতার করে  দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্টিত হয়েছে।মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নাগরিক কমিটির আহবায়ক ও ওয়ার্কাস পার্টির সম্পাদ এম এ মোতিন মোল্ল, বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা ও গোবিন্দগঞ্জ রিপোর্টার্স ফোরাম সভাপতি কমরেড রফিকুল ইসলাম রফিক, সি পি বি উপজেলা সভাপতি তাজুল ইসলাম , জাসদ ( জে এস ডি) সভাপতি আইয়ুব হোসেন, নাগরিক কমিটির যুগ্ন- আহবায়ক ও সাপ্তাহিক কাটাখালী পত্রিকার প্রতিষ্টাতা সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন আকন্দ, ওয়ার্কাস পার্টির নেতা আইয়ুব হোসেন বি এস সি প্রমূখ।

উল্লেখ্য গত ৮ এপ্রিল গাইবান্দার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কাটাবাড়ী ইউনিয়নের ফকিরগঞ্জ গ্রামের মনোয়ার হোসেন এর ছেলে ভাংরী ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক এর বাড়ী থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের বিভিন্ন শ্রেণীর ২০১৮ শিক্ষবর্ষের ১০ মেঃ টনঃ পাঠ্যপুস্তক উদ্ধার করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুর রাফিউল ইসলাম। খবর পেয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ কে এম মামুনুর রশিদ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বই চুরির দায় এরাতে নিজেই বাদী হয়ে ভাংরি ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(১)(ক)/২৫-ঘ ধারায় গোবিন্দগঞ্জ থানায় ৯৭ নং মামলা দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com
Web Site Designed, Developed & Hosted By ALL IT BD 01722461335