রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

বগুড়ায় ব্রয়লারের দাম কমাতে ৩ দিনের আলটিমেটাম

বগুড়া: বগুড়ায় ব্রয়লার মুরগির বাচ্চার দাম কমাতে তিন দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে জেলা পোল্ট্রি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ফিড অ্যান্ড চিকস অ্যাসোসিয়েশন।

শনিবার (১৯মার্চ) বেলা ১১টায় বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ আল্টিমেটাম দেন সংগঠনের নেতারা।

নেতারা বলেন, দাম না কমালে অন্যথায় সব ডিলার ব্রয়লার বাজারজাত বন্ধ করে দেবেন।

সংগঠনের আহ্বায়ক আসাদুল হক টুকু লিখিত বক্তব্যে বলেন, জেলার প্রায় আট হাজারের অধিক খামারের মধ্যে প্রায় পাঁচ হাজারের অধিক খামারে কেবল ব্রয়লার জাতের মুরগি পালন করা হয়। এ জেলার ১২টি উপজেলায় এই খাতে খামারীদের প্রায় আটশ’ কোটির টাকার মত বিনিয়োগ রয়েছে। প্রায় ৩ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান রয়েছে এ ব্যবসায়। এছাড়া স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে এখানকার মাংস দেশের বিভিন্ন স্থানে যায়।

তিনি আরো বলেন, গোটা দেশেই ব্রয়লার মুরগির মাংসের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আর এই ব্রয়লার মুরগির একদিন বয়সের বাচ্চা উৎপাদন করে দেশের প্রায় ৩৬টির মত বেসরকারি পর্যায়ের হ্যাচারী। যাদের বেশির ভাগই ঢাকা কেন্দ্রিক। ফলে এসব হ্যাচারী মালিকরা সব সময় কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অধিকমূল্যে ব্রয়লার মুরগির বাচ্চা বাজারজাত করেন।

আসাদুল হক টুকু বলেন, হ্যাচারী মালিকরা খামিরাদের তোয়াক্কা না করে মুরগির বাজার মূল্যের চিন্তা মাথায় না এনে সপ্তাহে সপ্তাহে মূল্য বাড়িয়ে চলেছেন। বর্তমানে প্রতিপিচ ব্রয়লার বাচ্চার মূল্য ৭০-৭৫ টাকা। অথচ তাদের প্রতিপিচ বাচ্চা উৎপাদনে খরচ হয় মাত্র ২৬-২৭ টাকা। যা হ্যাচারী মালিকরা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীসহ উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের কাছে স্বীকারও করেছেন। সেই হিসেবে তারা প্রতিপিচ বাচ্চা ৩৩ টাকা দামে বিক্রি করবেন বলে মন্ত্রীর কাছে মুচলেকাও দিয়েছেন। যার প্রমাণ দেশের প্রত্যেক জেলার প্রাণি সম্পদ অফিসে রয়েছে বলে তিনি জানান।

এ সমস্যা কেবল বগুড়ার নয়, পুরো দেশের খামারীদের। তাই এ ঘোষণার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশের জন্য সব জেলার ডিলার, খামারী ও সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানাই। সঙ্গে মালিকদের স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রাণি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

এসময় জেলা পোল্ট্রি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন লিডারসহ উভয় সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে তারা তাদের দাবির স্বপক্ষে শহরের সাতমাথা এলাকায় একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com