শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

বগুড়ায় জাতীয়পার্টির বর্ধিত সভায় সংসদ সদস্য আলতাফ লাঞ্চিত

মমিনুর রশীদ শাইন বগুড়া অফিসঃ বগুড়া-৭ (শাজাহানপুর-গাবতলী) আসনের জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য অ্যাড. আলতাব হোসেনকে লাঞ্ছিত করেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে সার্কিট হাউজে নিয়ে গেছে।শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়া জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতীয় পার্টির বর্ধিত সভায় এ ঘটনা ঘটে।জানা গেছে, আগামী ১২ ডিসেম্বর জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন উপলক্ষে বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও বগুড়া-২ আসনের সাংসদ শরিফুল ইসলাম জিন্নাহের সভাপতিত্বে শুক্রবার সকাল ১০টায় বর্ধিত সভা শুরু হয়। সভায় বগুড়া -৬ আসনের জাতীয়পার্টির সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর, বগুড়া-৩ আসনের সংসদসদ্য নুরুল ইসলাম তালুকদার, বগুড়া-৭ আসনের সাংসদ এ্যাডঃ আলতাফ আলীসহ বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় বক্তব্যে আলতাব হোসেনের বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা তুলে ধরেন। এরপর আলতাব হোসেনকে বক্তব্য রাখার জন্য মাইকে আহ্বান জানানো হয়। তিনি বক্তব্য শুরু করতেই মঞ্চের নিচে বসে থাকা নেতাকর্মীদের মধ্য থেকে ধড়-ধড় করে চিৎকার শুরু হয়।
একপর্যায়ে কিছু নেতাকর্মী মঞ্চে উঠে আলতাব হোসেনকে লাঞ্ছিত করেন।
এ সময় মঞ্চে থাকা জেলা জাতীয়পার্টির সভাপতি ও বগুড়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, সাধারণ সম্পাদক ও বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম , বগুড়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম তালুকদার বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের হাত থেকে আলতাব হোসেনকে রক্ষা করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আলতাব হোসেনকে উদ্ধার করে বগুড়া সার্কিট হাউজে নিয়ে যায়। পরে জেলা জাতীয় পার্টির সাংসদ নুরুল ইসলাম ওমর জুম্মার নামাজের বিরতি দিয়ে সভা মুলতবি ঘোষণা করেন। নামাজের বিরতির পর সভাপতি সাংসদ শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ এ্যাড আলতাফ আলীকে আবারো সভাস্থলে ফেরে নিয়ে আসে।
জেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফর রহমান স্বপন জানান, গাবতলী উপজেলার মড়িয়া আর এমপি উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি মনোনয়নের জন্য আলতাব হোসেন তাকে ডিও লেটার দিয়েছেন। একই বিদ্যালয়ে সভাপতি মনোনয়নের জন্য তিনি আওয়ামী লীগ-বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত আরও তিনজনকে ডিও লেটার দিয়ে জটিলতা সৃষ্টি করেছেন। শুধু তাই নয় গাবতলী ও শাজাহানপুর উপজেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সভাপতি মনোনয়নের ক্ষেত্রে তিনি একই ধরনের জটিলতা সৃষ্টি করে আসছেন। এছাড়াও তিনি জাতীয়পার্টির নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করে টাকার বিনিময়ে অন্য রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন কাজে সহযোগিতা করে থাকেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com