সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
Gtbnews24.com এর হেড অফিস স্থানান্তর করা হয়েছে। বতর্মান ঠিকানাঃ মাঝিড়া,শাজাহানপুর,বগুড়া।
সংবাদ শিরোনামঃ
বগুড়ার শেরপুরে বিশালপুর ইউনিয়ন বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কাহালু সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা থানায় তদবিরে গিয়ে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামী গ্রেফতার মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত: পররাষ্ট্র সচিব আয়রন ব্রিজ তো নয় যেন মরণ ফাঁদ উখিয়ায় বিভিন্ন অপরাধে জড়িত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেফতার ৬ শিবগঞ্জে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী শাওনের নির্বাচনী উঠান বৈঠক শিবগঞ্জে কৃষকের কলা বাগানের ছড়িতে মেডিসিন ষ্প্রে করে ২শতাধিক কলা নষ্ট করার অভিযোগ শিবগঞ্জ থানা পুলিশের আয়োজনে দূর্গাপূজা উপলক্ষে মত বিনিময় সভা ধামইরহাটে জাহানপুর ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে চান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি লুইছার রহমান

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে সাপের ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়।। আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ

মোঃ শাহরিয়ার কবির আকন্দ গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধার পলাশবাড়ী পৌরসভা এলাকায়  রাস্তায় রাস্তায় সাপ নিয়ে বেদে সম্প্রদায়ের নারীদেরকে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষদের নিকট থেকে একটু চাপে ফেলে বিষাক্ত সাপের ভয় দেখিয়ে এবং অসামাজিক কিছু অঙ্গিভঙ্গি প্রদর্শন করে নাছোড়বান্দার মত টাকা আদায়  করতে দেখা যায়। সাপ দেখলে ছোট বড় সকলের গা এমনিতে  শিংরিয়ে ওঠে তার উপর এদের গলায় ঝুলানো এসব বিষধর বড় সড় সাপ দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে।
আজ বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শহরের ব্যস্ততম এলাকা চৌমাথা জিরোপয়েন্ট ও প্রেসক্লাবের সামনে দেখা যায় বেদে সম্প্রদায়ের এক নারী (৩৫) সাপ নিয়ে টাকা তোলার এমন ভয়ানক দৃশ্য। বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে টাকা চাইছেন। এর ফলে ছোট-বড় সব বয়সি মানুষ আতঙ্কিত হয়ে উঠছেন। সাপের ভয়ে অনেকে টাকা দিতে বাধ্য হচ্ছেন। তবে এ সাপুরে নারী টার্গেট করছেন মূলত সাপ ভিতু মানুষদের। সাপ গলায় জড়িয়ে রেখে আবার কাঠের ছোট বাক্সের মধ্য থেকে সাপের মাথা বের করছেন। এ সময় সাপ তার জিহ্বা নাড়ানোর কারণে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে মানুষ। চমকে উঠছেন পথচারী ও দোকান মালিকরা। এরপর ভদ্রলোকদের পথ আগলে দাবি করা হচ্ছে টাকা। চাহিদা মতো টাকা না দিলে ছেলেদের শার্ট আর মেয়েদের ওড়না টেনে ধরা হচ্ছে। সাপ নিয়ে এসব নতুন নয়,কিন্তু বর্তমানে তা খুব বেশি দেখা যাচ্ছে এ পৌর নগরীতে। অনেক পথচারী সাপের ভয় থেকে বাঁচতে টাকা  দিতে বাধ্য হচ্ছেন।
লোক বুঝে যার থেকে যেমন টাকা পাচ্ছেন,তা আদায় করছেন। টাকা আদায়ের সময় কয়েকজন মিডিয়াকর্মী ওই নারীর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেন। তার নাম ও বাড়ি কোথায় জিজ্ঞাসা করা হয়। কিন্তু এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে নারাজ ওই নারী। তবে তিনি জানান,তার স্বামী নেই। ছেলেমেয়ে আছে দুইজন। বেদে সম্প্রদায়ের মানুষ তিনি। আয়-উপার্জনের ভিন্ন কোনো পথ তার জানা নেই। তাই তিনি সাপ দেখিয়ে টাকা নেন। প্রতিদিন তার আয় হয় পাঁচ থেকে ছয়শ টাকা। এ টাকা দিয়েই কোনোভাবে ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে সংসার চালান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com