রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১২ অপরাহ্ন

নোটিশঃ
Gtbnews24.com এর হেড অফিস স্থানান্তর করা হয়েছে। বতর্মান ঠিকানাঃ মাঝিড়া,শাজাহানপুর,বগুড়া।
সংবাদ শিরোনামঃ
বগুড়ার শেরপুরে বিশালপুর ইউনিয়ন বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কাহালু সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা থানায় তদবিরে গিয়ে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামী গ্রেফতার মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত: পররাষ্ট্র সচিব আয়রন ব্রিজ তো নয় যেন মরণ ফাঁদ উখিয়ায় বিভিন্ন অপরাধে জড়িত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেফতার ৬ শিবগঞ্জে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী শাওনের নির্বাচনী উঠান বৈঠক শিবগঞ্জে কৃষকের কলা বাগানের ছড়িতে মেডিসিন ষ্প্রে করে ২শতাধিক কলা নষ্ট করার অভিযোগ শিবগঞ্জ থানা পুলিশের আয়োজনে দূর্গাপূজা উপলক্ষে মত বিনিময় সভা ধামইরহাটে জাহানপুর ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে চান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি লুইছার রহমান

বিদেশে কোটি টাকা পাচার মানব পাচারকারী মদিনা-বিলকিসের খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত যুবক

স্টাফ রিপোর্টারঃ
রাজধানীর উত্তর খাঁন থানাধীন ধোবাদিয়া টেকপারা এলাকার আদম বেপারী মাহফুজ আলম রনির স্ত্রী মদিনা বেগম (২৮) ও তার বান্ধবী বিলকিস বেগম (৩৫) ইতালি ও মালটায় মানব পাচারের অন্তরালে কোটি টাকা পাচার করেছেন বলে ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে। স্বপ্নের ইতালি যাওয়ার আসায় মদিনা-বিলকিসের খপ্পরে পড়ে ১২ লাখ খুইয়ে সর্বশান্ত নরসিংদীর যুবক শাকিল।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, রাজধানীর উত্তর খাঁন থানাধীন ধোবাদিয়া টেকপাড়ার এলাকার মাহফুজ আলম রনি ২০১৭ সালে অবৈধ ভাবে ইতালিতে প্রবেশ করে। পরে তিনি স্থায়ীভাবে পাশের দেশ মালটায় বসবাস শুরু করেন। কিছুদিন যেতে না যেতেই অবৈধ মানব পাচারকারী সিন্ডিকেটের সাথে সখ্যতা গড়ে বাংলাদেশ থেকে লোক নেয়ার কাজ শুরু করেন। আর এই কাজে তাকে তার স্ত্রী মদিনা বেগম ও বিলকিস সহযোগিতা করে। এরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ইতালি ও মালটায় নাগরিত্ব দেয়া সহ বিদেশ যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে লোক সংগ্রহ করে। প্রলোভনে পড়ে অনেকেই তাদের কাছে ১০/১৫ লক্ষ টাকা সহ পাসপোর্ট জমা দেয়। যদিও পরবর্তীতে তাদের আর ইতালিতে পাঠানো হয় না। কিন্তু তাদের কাছে টাকা এবং পাসপোর্ট ফেরত চাইতে গেলে বিভিন্ন তালবাহানা সহ উল্টো নারী নির্যাতন মামলার ভয় দেখানো হয়।

নরসিংদী রায়পুরার এলাকার মো: সাকিল জানায়, ২০২০ সালে নভেম্বর মাসে তাকে ইটালিতে পাঠানোর নামে তার কাছ থেকে পাসপোর্ট সহ ১২ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন মদিনা বেগম ও বিলকিস। কিন্তু তাকে আর ইতালি বিদেশে পাঠানো হয় না। টাকা ফেরত চাইলে মদিনা ও বিলকিস তাকে আজ-কাল বলে ঘুরাতে থাকে। অপরদিকে ঋণের দায়ে তার পরিবার মানবেতর জীবন যাপন শুরু করে। শাকিলের মতো সর্বশান্ত হয়ে নোয়াখালীর রহিম মিয়া, রনি শেখ ও নারায়ণগঞ্জের রিপন মিয়া একই অভিযোগ করেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ মদিনা বেগম যোকোন মুহূর্তে তার স্বামী মাহফুজ আলম রনির কাছে ইতালি চলে যেতে পারে। প্রশাসনের কাছে ভুক্তিভোগীদের অভিযোগ মদিনা বেগম যেন দেশের বাহিরে না যেতে পারে। তাকে যেন আইনের আওতায় আনা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com