সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

বার বার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা রাজনীতি ও সাধারণ মানুষের মধ্যে ভিবাজন সৃষ্টি করছেন

মো. সুজন মোল্লা,বানারীপাড়া (বরিশাল)প্রতিনিধি: স্থানীয় নির্বাচনে বার বার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা রাজনীতি ও সাধারণ মানুষের মধ্যে ভিবাজন সৃষ্টি করছেন। মাঠ পর্যায়ের চায়ের টেবিলে এমনই আলোচনা এখন মূখ্য বিষয় হয়ে উঠেছে। ওই আলোচনায় পৌরসভা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ বিশেষ করে বৃদ্ধজনরাই বেশি যুক্ত হচ্ছেন।

তাদের আলোচনার শারাংশে একটাই বিষয় প্রধান্য পাচ্ছে, এলাকায় বার বার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাই রাজনীতির এবং তাদের মধ্যে বড় ধরণের ভিবাজন তৈরি করছেন। আর বর্তমানে এই সমস্যা সরকারে থাকা আওয়ামী লীগেই অনেক বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে। কেননা এই দলটির হয়ে স্থানীয় নির্বাচনে অংশ গ্রহন করার প্রার্থী অনেক বেশি। অনুসন্ধানে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানাগেছে প্রার্থী অনেক থাকলেও তাদের পৌরসভা বা ইউনিয়নে এমনকি ওয়ার্ডেও একই প্রার্থীকে বার বার মনোনীত করা হয়।

ফলে মনোনয়ন চাওয়া অন্য প্রার্থীরা এবং সমর্থকরা তাদের স্ব-স্ব এলাকায় অনেকটা কোনঠাসা হয়ে পরেন। পক্ষান্তরে মনোনীত প্রার্থী এবং তাদের সমর্থকরা সবদিক দিয়ে ফুলে-ফেপে ওঠেন। এই যখন অবস্থা তখন খোদ সরকারি দল আওয়ামী লীগের মাঠ পর্যায়ের দীর্ঘদিনের ত্যাগী নেতা-কর্মীরা তাদের ভিতরেজন্ম নেয়া রাজনীতির আগ্রহ হারিয়ে নিজেদের গুটিয়ে নেয় বা অনেকে নিয়েছেন।

অপরদিকে অনেক স্থানে স্থানীয় নির্বাচনে একাধিকবার একজনকে মনোনীত করায় সেখানকার বেশির ভাগ গ্রামীণজনপদ বেহাল অবস্থায় পতিত হয়েছে। আর যেটুকু কাজ হয়েছে তাও আবার অনেক নিন্মমানের হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। আর এটা হচ্ছে ওই ইউনিয়নে ধারাবাহিকভাবে একজনকে দলীয় সমর্থন দেয়ার ফল। তারা বার বার দলীয় সমর্থন পেয়ে নিজেদের সমর্থীত দলটির মালিক মনে করছেন।

আবার সরকারি দলের না হয়েও সেই দল থেকে সমর্থন পেয়ে অনেক জনপ্রতিনিধি নির্বচিত হয়ে খোদ সরকারকেই সমালোচনার মধ্যে ফেলছেন সাধারণ মানুষের কাছে। এ সবের মধ্যেও সরকারি দলে অনুপ্রবেশ করা চতুরদেরও দলীয় সমর্থন দেয়া হচ্ছে বলেও সূত্র থেকে জানা যায়। তবে এই সমর্থন বেশির ভাগই অর্থের বিনিময়ে হয়ে থাকে বলে জনশ্রুতি রয়েছে।

এই যখন মাঠ পর্যায়ের নির্বাচনের অবস্থা তখন সাধারণ মানুষ স্থানীয় নির্বাচনে দলীয় ত্যাগী ও পরীক্ষিত নতুনদের মনোনীত করার পক্ষে বেশি মতামত প্রকাশ করছেন তাদের আলোচনায়। এমন অবস্থা বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায়ও পরিলক্ষিত হচ্ছে বলে অনুসন্ধানের সময়ে অভিমত প্রকাশ করেছেন অনেক বৃদ্ধজনরা এবং উপেক্ষিত নেতা-কর্মীরা। এবিষয়ে তারা দাবী করছেন স্থানীয় নির্বাচনে (সরকারি দলের) তৃনমূল থেকে উঠে আসা নিবেদিত ব্যক্তিদের যুক্ত করা হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com