শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

ধামইরহাটে ১০ টি জলাশয়ে দেশীয় মাছের পোনা অবমুক্ত

আবু মুছা স্বপন ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে ১০টি জলাশয়ে দেশীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। ৯ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলা মৎস্য দপ্তরের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ পুকুরে মাছ অবমুক্ত করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজাহার আলী।

এ সময় বেলঘরিয়া দাখিল মাদরাসা পুকুর ও বেলঘরিয়া মসজিদ, বৈদ্যবাটি ও মানপুর আবাসন কেন্দ্র, শ্যামপুর মসজিদ ও ধাপের পুকুর, শিমুলতলী ও তালান্দার সীমান্ত ফাড়ি ও ঘুকসি বিলসহ ১০ টি জলাশয়ে ৩ শত ৪৫ কেজি রুই-কাজলা জাতের দেশীয় মাছ অবমুক্ত করা হয়।

পোনামাছ অবমুক্ত কালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গনপতি রায়, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবু সাইদ, সমাজসেবা কর্মকর্তা, সোহেল রানা, মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মাহবুবার রহমান, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান, একাডেমিক সুপারভাইজার কাজল চন্দ্র সরকার, সিনিয়র সাংবাদিক এম এ মালেক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

ধামইরহাটে বিএমডিএর উদ্যোগে কাজু বাদামের চারা রোপন

আবু মুছা স্বপন ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে মুজিববর্ষ উপলক্ষে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ)’র উদ্যোগে কাজু বাদামের চারা রোপন করা হয়েছে। ৩ সেপ্টেম্বর বেলা ১১ টায় উপজেলার হাটনগর ও সেনরগর এলাকায় মোট ১ বিঘা জমিতে ৫০টি কাজু বাদামের চারা রোপন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আজাহার আলী। উপজেলা নির্বাহী অফিসার গনপতি রায়ের সভাপতিত্বে কাজু বাদামের চারা রোপন অনুষ্ঠানে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সেলিম রেজা, বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী হাবিবুল আহসান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুস সোবাহান সাফি, কাউন্সিলর আব্দুল হাকিমসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

ধামইরহাটে ভিমরুলের কামড়ে দুধের শিশুর মৃত্য-আহত ১০

আবু মুছা স্বপন ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে ভিমরুলের কামড়ে দুধের শিশুর শামীমের মর্মান্তিক মৃত্য হয়েছে। পরিবারের একমাত্র সন্তাকে হারিয়ে দিশে হারা পিতা-মাতা।প্রত্যক্ষদর্শী মৃত শিশুর বড় চাচা আড়াইতাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলাম জানান, তার ছোট ভাই হারুনুর রশিদের আড়াই বছর বয়সী একমাত্র শিশু সন্তান শামীম হোসেন ৩ সেপ্টেম্বর মাগরিবের আজানের পূর্বে বাড়ীর পাশেই খেলছিল।

এমন সময় বাড়ীতে পাশে থাকা তালগাছে ঢিল ছুড়তে গিয়ে ভিমরুলে (বাসা) চাকে কে বা কাহারা ঢিল ছুড়লে ভিমরুল দিক-বিদিক ছুটতে থাকে এবং দুধের শিশু শামীমকে প্রায় ২৫-৩০ টি ভিমরুল কামরায়। এ সময় আরও দুই শিশুসহ ছোট বড় প্রায় ১০ জন আহত হন।

এতগুলো ভিমরুলের কামড়ে শিশু শামীমকে গুরুত্ব অবস্থায় ধামইরহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেয়া হলে সেখানে তার অবস্থা বেগতিক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাতসাড়ে ৯ টায় জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানে ইমারজেন্সিতে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। ৪ সেপ্টেম্বর শিশু শামীমকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। অন্যান্যরা একই গ্রামের অন্তর ইসলামের মেয়ে বৃষ্টি (১৬) ও রেজুয়ান ইসলামের আড়াই বছর বয়সী মেয়ে রাফিয়া জান্নাসহ ধামইরহাট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

ধামইরহাটে রসপুর আবাসন কেন্দ্রের জরাজীর্ণ ঘরে বাস করছেন ভূমিহীনরা

আবু মুছা স্বপন ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে রসপুর আবাসন কেন্দ্রে প্রায় ১০০ ভূমিহীন পরিবারকে পূনর্বাসন করে প্রশাসন। ওয়ান ইলেভেনে ওইসব ভূমিহীনদেন দুর্ভোগ লাঘবে তাদের পূনর্বাসন করা হয়েছিল। বর্তমানে অধিকাংশ ঘরের টিন জরাজীর্ণ অবস্থায় বড় বড় ফুটো হয়ে গেছে, কোথাও টিন উড়ে গেছে, একটু বৃষ্টিতে ঘরে রক্ষিত আসবাবপত্র ও খাদ্য সামগ্রী ভিজে যায় বলে ভুক্তভোগীরা জানান।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. দেলদার হোসেন জানান, ১ যুগ পূর্বে দেশে জরুরি অবস্থা চলাকালীন মঈন উদ্দিন-ফখরুদ্দিনের শাসনামলে রসপুরে হিন্দু, মুসলমান, আদিবাসীসহ ১শত পরিবার নতুন ঘর নির্মান করে তাদের নামে দলিল সম্পাদন করে দেওয়া হয়। কিন্তু বর্তমানে ঘরগুলো অধিক পুরোনো হওয়ায় অনেকটাই বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে, আমি উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে ভুক্তভোগীদের ঘর মেরামত সহ আশ্রয়ন কেন্দ্র বসবাস উপযোগী করার আহবান জানাচ্ছি।

ভুক্তভোগী আশ্রয়ন কেন্দ্রের সাইফুল ইসলাম জানান, কয়েক বছর পূর্বে চুলার আগুনে অগ্নিকান্ডে প্রায় ১০টি ঘরের অধিকাংশ পুড়ে যায়, সেই থেকে টিনগুলো নষ্ট হয়ে গেছে।রসপুর আবাসন কেন্দ্রে গঠিত সমবায় সমিতির সম্পাদক আফজাল হোসেন, ‘আমাদের এখানে ১০-১৫ ঘর ব্যবহারের মত নয়, তাছাড়াও প্রায় সব ঘরেই পানি পড়ে, আমাদের এখানে কোন মসজিদ বা মক্তব না থাকায় নামাজ পড়া বা ধর্মীয় মিলাদ মাহফিল করতে কষ্ট হয়, দুরবর্তী মসজিদে গিয়ে নামাজ-কালাম পড়তে হয়।

খেলনা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম জানান, প্রায় ৫-৭ বছর পূর্বে আগুন লাগার পর থেকে এই ঘরগুলোর বেহাল অবস্থা, আর এখানে বসবাসরত অনেকেই বেপরোয়া চলাফেরা, মাদকসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত হয়ে নোংরা পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, আমি সার্বিক বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনকে অবগত করেছি।উপজেলা সমবায় অফিসার হারুন অর রশীদ জানান, সমবায় অধিদপ্তরের রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত একটি সমবায় সমিতি

সেখানে বিদ্যমান আছে এবং কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে, খুব শ্রীঘ্রই সেখানে এডহক কমিটি ও নির্বাচন সাপেক্ষে নতুন কমিটি উপহার দেয়া হবে, এবং নতুন কমিটি সেখানকার সুস্থ্য পরিবেশ ফিরিয়ে আনবে বলে আমি মনে করি।এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গনপতি রায় বলেন, আমরা ইতিমধ্যে রসপুর আবাসন কেন্দ্রের বিষয়টি অবগত করে উর্ধতন মহলে চিঠি প্রেরণ করেছি, আশা করছি খুব শ্রীঘ্রই আমরা রসপুর আবাসন কেন্দ্র মেরামতে সরকারি বরাদ্দ পাবো।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com