শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

২০ মণ ওজনের গরুর ক্রেতা মিলছেনা:ঋনগ্রস্থ খামারী চিন্তিত

নীলফামারীর বিশেষ প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডিমলায় দীর্ঘ ৪ বছর নিজ সন্তানের মত লালন পালন করে শরিয়ত মোতাবেক কুরবানির উপযুক্ত হিসেবে প্রস্তুত করা প্রায় ২০ মণ ওজনের গরুর ক্রেতা না পেয়ে চিন্তায় পড়েছেন সুলতান নামে এক ক্ষুদ্র খামারী।

সরেজমিনে জানা গেছে,উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের কুঠিরডাঙ্গা এলাকার আব্দুল রউফের পুত্র ক্ষুদ্র খামারী শাহাসুলতান ও তার স্ত্রী কুরবানী দেয়া ব্যক্তির নিকট বিক্রি করার উদ্যেশ্যে অনেক আশা নিয়ে ফিজিয়ান জাতের এক ষাড় গরুকে দীর্ঘ ৪ বছর লালন-পালন করে বড় করেছেন।অনেক আদর করে তারা গরুটির নাম রেখেছেন আল্লাহর দান।৫ ফিট উচ্চতা ও ৯ ফিট দৈর্ঘ্যতার সাদা-কালো রঙ্গের ২ শিং এবং ৬ দাতের গরুটির বর্তমান ওজন প্রায় ২০ মণ।যার বাজার মুল্য দাবি করেছেন খামারী ৬ লাখ টাকা।গরুটি এক নজর দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকার মানুষজন

প্রতিনিয়তই খামারীর বাড়িতে ভিড় করে থাকেন।তবে আসন্ন কুরবানির ঈদে গরুটি তিনি বিক্রি করতে চাইলেও বর্তমান দেশের করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ক্রেতা সঙ্ককের কারনে গরুর মালিক সুলতান পড়েছেন ভিষন দুঃচিন্তায়।গরুর মালিক শাহাসুলতান বলেন,দীর্ঘ ৪ বছর যাবত গরুটিকে অনেক আশা নিয়ে নিজের সন্তানের মত লালন-পালন করে বড় করেছি।গরুটি আমি কুরবানি দেয়া ব্যক্তির নিকট বিক্রির করব বলে অনেক

অর্থনৈতিক সমস্যাতেও তা অন্যকারো নিকট বিক্রি করিনি।গরুটি ৪ বছর লালন-পালন করতে গিয়ে আমি অনেক ঋনগ্রস্ত হয়ে পড়েছি।আসন্ন কুরবানির ঈদে গরুটি বিক্রি করতে না পারলে আমি অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হব।গরুটির মুল্য আমি ৬ লাখ টাকা আশা করলেও যে কোনো ব্যক্তি আলোচনা সাপেক্ষে ক্রয় করতে পারবেন।তিনি আরও বলেন,আমার মত ক্ষুদ্র খামারীরা অনেক স্বপ্ন নিয়ে তিল তিল করে সন্তানের মতই লালন-পালন করে গরু

বড় করে থাকেন সমাজের বিত্তবানরা ন্যায্য মুল্য দিয়ে তা কুরবানির উদ্যেশ্যে ক্রয় করবেন বলেই।দেশের যে কোনো প্রান্তের ও প্রবাসী ব্যক্তিরা আমার রোগ-বালাই মুক্ত গরুটি ক্রয় করতে চাইলে সরাসরি আমার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে(০১৭৪৫০৮১৫১২)যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করছি আমি।এছাড়াও প্রয়োজনে গরুটি অনলাইনে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেও যে কেউ দর করে তা ক্রয় করতে পারবেন।

 

ডিমলা সহ নীলফামারী জেলায় নতুন করে আরও ৫ জন করোনা আক্রান্ত

নীলফামারীর বিশেষ প্রতিনিধি:নীলফামারী জেলায় নতুন করে আরও পাঁচজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।এ নিয়ে জেলায়র্ মোট করোনা আক্রান্তে সংখ্যা ৫৯৫ জন।মঙ্গলবার(২১ জুলাই) রাতে সিভিল সার্জন রনজিৎ কুমার বর্মন সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবের রিপোর্টে নতুন করে আরও ৫জন করোনায় আক্রান্তের মধ্যে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হেলথ

এডুকেটর আব্দুল বাসেদ(৪০)সহ ডিমলার ১৭ বছরের এক কিশোর, জলঢাকা উপজেলার মাথাভাঙ্গা এলাকায় ১৩ বছরের এক কিশোরী, উপজেলার কাঁঠালী ইউনিয়নের পূর্ব কাঁঠালী গ্রামের একজন ও সৈয়দপুর উপজেলা শহরের পুরাতন বাবুপাড়ায় একজন।জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্র মতে, এ পর্যন্ত নীলফামারী জেলায় সর্বমোট করোনা আক্রান্তে সংখ্যা ৫৯৫ জন।

নীলফামারী সদরে ২৭৩জন, জলঢাকা উপজেলায় ৯১জন, সৈয়দপুর উপজেলায় ৮১জন, ডিমলা উপজেলায় ৬১জন, ডোমার উপজেলায় ৫১জন ও কিশোরীগঞ্জ উপজেলায় ৩৮জন। এর মধ্যে সুস্থ্য হয়ে ফিরে গেছে ৪৬১। চিকিৎসাধীন রয়েছে ৯৪জন। মৃত্যু হয়েছে ২ নারী সহ ৯ জনের।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com