সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

করোনা আতঙ্কে গরুর দাম নয়িে হতাশ শবিগঞ্জরে খামারীরা

জিটিবি নিউজঃ সাজু ময়িা (শবিগঞ্জ) বগুড়া প্রতনিধিঃ বগুড়ার শবিগঞ্জ উপজলোয় ঈদুল আযহাকে কন্দ্রে করে গড়ে উঠছেে অনকে গরুর খামার । উপজলোয় প্রায় ২ হাজার খামারী ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে ৪০ হাজার গরু মোটা তাজা করার লক্ষ্যে দনি রাত পরশ্রিম করে যাচ্ছ।ে র্বতমানে করোনাভাইরাসরে কারণে উপজলোর হাট বাজার গুলোতওে মাংসরে চাহদিা তুলনামুলক ভাবে কম।

চলতি বছরে ঈদুল আযহায় করোনাভাইরাসরে আতঙ্কে গরু হাটে বক্রিকিরা ও বাজার দাম নয়িে হতাশ হয়ে পড়ছেে এখানকার খামারীরা। বষিয়টি নশ্চিতি করে শবিগঞ্জ উপজলো প্রাণী সম্পদ র্কমর্কতা জাফরনি রহমান দনৈকি ডল্টো টাইমসকে দয়ো এক সাক্ষাৎকারে এসব তথ্য জানয়িছেনে।

জানা গছে,ে বগুড়া শবিগঞ্জ উপজলোর ১২ টি ইউনয়িন ও ১টি পৌরসভায় ঈদুল আযহাকে কন্দ্রে করে গরু মোটা তাজা করছনে খামারীরা। গরুর মাংস উৎপাদনরে দকি থকেে এ উপজলো অনকে এগয়ি।ে উপজলোয় ছোট বড় প্রায় ২ হাজার গরু মোটা তাজা করণ খামার গড়ে উঠছে।ে স্থানীয় ভাবে উৎপাদতি গরু থকেে ৯০ ভাগ মাংসরে চাহদিা পূরণ করা হয়। ঈদুল আযহায় গরু বক্রিি করার জন্য প্রায় ৪০ হাজার গরু লালন পালন করছে খামারীরা।

এ উপজলোয় গবাদীপশু কনো বঁেচা করার জন্য বড় হাট গুলোর মধ্যে মহাস্থান হাট, বুড়গিঞ্জ হাট, ডাকুমারা হাট, দাড়দিহ হাট উল্ল্যখে করার মতো। এই হাট গুলো ছাড়াও ঈদুল আযহায় উপজলোর বভিন্নি এলাকায় আরও ২৫ থকেে ৩০ টি অস্থায়ী হাট বস।ে করোনার কারণে এসব হাট বসবে কনিা তা নয়িওে সঙ্খতি খামারীরা। উপজলোর খামারীদরে মধ্যে অনকে বকোর যুবকরো সরকারি , আধা সরকার,ি এনজওি চালতি ব্যাংক ঋণ নয়িে গবাদি পশুর খামার গড়ে তুলছ।

এখানকার গরু স্থানীয় চাহদিা মটেয়িে দশেরে বভিন্নি স্থানে রপ্তানি করা হয়। খামারে গরু মোটা তাজা করণরে প্রক্রয়িা চলছ।ে এখন শুধু ঈদুল আযহার আপক্ষোয় দনি গুনছে এলাকার গরু খামারীরা। এখানকার গরু ঢাকা, নারায়ণগজ্ঞ, মাদারীপুর, রাজশাহী , সলিটে, চট্রগ্রাম, সহ দশেরে বড় বড় বাজারে বক্রিরি জন্য নয়িে যাওয়া হয়।

বুড়গিঞ্জ এলাকার খামারী শাবান আলী বলনে, গত বছর ৩টি গরু ছলি খরচ বাদ দয়িে ১ লাখ টাকা লাভ হয়ছেলি, র্বতমান ৪ টি গরু আছ।ে করোনার কারণে বাজারে ভাল দাম মলিবে কনিা এই আতঙ্ক মনে সব সময় কাজ করছ। মোকামতলা এলাকার খামারী জোব্বার আলী বলনে, এবার ঈদে কি রকম দামে গরু বক্রিি করতে পারবো সটো জাননিা। বাজারে গোখাদ্যরে দাম অগরে তুলনায় অনকে বশে।ি গরু বক্রিি করে ভালো দাম না পলেে ঋনরে টাকা পরষিদ করাই কঠনি হয়ে যাব।

এ বষিয়ে উপজলো প্রাণী সম্পদ র্কমর্কতা জাফরনি রহমান আরও বলনে, খামারীদরে র্সাবক্ষনকি পরার্মশ প্রদান করে আসছ। তাদরে পালনকৃত গবাদীপশু নয়িে যে কোন সমস্যায় প্রাণী সম্পদ বভিাগ পাশে থাকব।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com