শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

ফের নির্বাচিত হতে জিনপিংয়ের সহায়তা চেয়েছিলেন ট্রাম্প!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নির্বাচনে পুণরায় বিজয়ী হতে চীনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিংয়ের সাহায্য চেয়েছিলেন। ট্রাম্পের প্রাক্তন জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা জন বোল্টনের লেখা নতুন বইয়ে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। ২০১৯ সালের জুনে জাপানে অনুষ্ঠিত হওয়া জি-২০ সম্মেলনে শি জিনপিংকে এমন অনুরোধ করেন ট্রাম্প।

বোল্টন বলেছেন, ‘ট্রাম্প চীনকে মার্কিন কৃষকদের কাছ থেকে কৃষি পণ্য কিনতে অনুরোধ করেন।’

তিনি আরো বলেছিলেন যে ট্রাম্প ‘হোয়াইট হাউস কীভাবে চালাবেন সে সম্পর্কে অত্যাশ্চর্যভাবে অবহিত নন।’

এদিকে ট্রাম্প প্রশাসন প্রেসিডেন্টকে রক্ষা করতে বোল্টনের প্রকাশিতব্য বইটি আটকাতে চাইছে। বোল্টনের লেখা ৫৭৭ পৃষ্ঠার বইটি ২৩ জুন থেকে বিক্রি শুরু হবে বলে প্রকাশনী সংস্থা সাইমন অ্যান্ড শুস্টার জানিয়েছে।

ফক্স নিউজের সাথে বলতে গিয়ে ট্রাম্প বোল্টনের বিষয়ে বলেছিলেন, “তিনি আইনটি ভেঙে দিয়েছেন। এটি অত্যন্ত গোপনীয় তথ্য এবং তা প্রকাশে বোল্টনের কোন অনুমোদন ছিল না।”

তিনি আরো যোগ করেন এভাবে, “তিনি ধূর্ত লোক ছিলেন। আমি তাকে (বোল্টন) একটা সুযোগ দিয়েছিলাম।”

২০১৮ সালের এপ্রিলে হোয়াইট হাউসে যোগ দেয়া জন বোল্টন ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে হোয়াইট হাউস ছেড়ে যান। তিনি তখন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার পদ থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন। রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প অবশ্য বলেছিলেন, তিনি বোল্টনকে বরখাস্ত করেছিলেন।

তবে গতকাল ১৭ জুন, বুধবার রাতে এই বইয়ের বাজারজাত বন্ধে বিচারকের কাছে জরুরি আদেশ চাওয়া হয় বলে জানিয়েছে প্রকাশক সাইমন অ্যান্ড শুস্টার। এক বিবৃতিতে প্রকাশনা সংস্থটি জানায়, গত রাতে সরকার কর্তৃক দায়ের করা ফাইলটি রাজনৈতিকভাবে অনুপ্রাণিত হওয়ার একটি মহড়া।

তবে তারা এটিও বলেছে যে, বইটির কয়েক হাজার অনুলিপি ইতিমধ্যে বিশ্বজুড়ে বিতরণ করা হয়েছে এবং আদেশ নিষেধাজ্ঞার কিছুই সফল হবে না।

ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্রেটিক পার্টির সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন বইটি সম্পর্কে এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন ‘যদি এই বিবরণগুলো সত্য হয় তবে এটি কেবল নৈতিকভাবে অপমানজনক নয়। এটি আমেরিকান মানুষের প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের পবিত্র দায়িত্ব লঙ্ঘনও বটে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com