শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন

নোটিশঃ
দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় জিটিবি নিউজ এর সাংবাদিক  নিয়োগসহ পরিচয় পত্র নবায়ণ চলছে।

মুশফিকের পছন্দ মেসি, মাধুরী, আকবরের রোনালদো, জোলি

জিটিবি নিউজঃ কাল ছিল মুশফিকুর রহিমের জন্মদিন। শুরুতেই তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেসবুক লাইভ নিলাম অনুষ্ঠান শুরু করলেন সঞ্চালক। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক আকবর আলীও শুভেচ্ছা জানালেন মুশফিক। এরপর শুরু হলো কথার পিঠে কথা।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে দুস্থ মানুষদের সাহায্যে নিজেদের ক্রিকেটীয় স্মারক নিলামে তুলছেন মুশফিক-আকবর। ‘স্পোর্টস ফর লাইফ’ এর উদ্যোগে কাল সেই নিলাম শুরুর লাইভ অনুষ্ঠানে ‘নাগিন নাচ’ নিয়ে কথা বললেন মুশফিক। বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা এ নাচ পরিচিতি করিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। মুশফিক এ নিয়ে বলেন, ‘এটা আসলে কখনো পূর্ব পরিকল্পিত উদযাপন ছিল না। নাজমুল ইসলাম অপু ভাই এটার উদ্ভাবক।’

শ্রীলঙ্কা সফরে গিয়ে মাঠে এ নাচের তাল দেখিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা। মুশফিক এ নিয়ে বলেন, ‘ওখানে জয়ের রানটা আমার ব্যাট থেকে এসেছিল। তাই আকাশে উড়ছিলাম। তখনই হঠাৎ করে এই (নাগিন নাচ)উদযাপন। এটা কাউকে আঘাত করার জন্য ছিল না।’

ফেসবুকে এই লাইভ অনুষ্ঠান নিজের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে শেয়ার করেন মুশফিক। জাতীয় দলের সাবেক এ অধিনায়ককে সাম্প্রতিক সময়ের ‘ট্রেন্ড’ নিয়ে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, সবাই মাথার চুল ফেলে দিচ্ছে? ‍মুশফিক যেন কৌতুকের সুরে সামনের পায়ে রক্ষণাত্মক খেললেন, ‘হ্যাঁ,দেখলাম অনেকেই করছে। আসলে আমার মাথায় চুল বেশি নেই। ভেবে দেখলাম (চুল) ফেলে দিলে যদি আর না ওঠে!’

দেশকে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জেতানো অধিনায়ক আকবর আলীকে নিয়েও কথা বলেন মুশফিক। সঞ্চালকের প্রশ্ন ছিল, আকবরের মধ্যে নিজের প্রতিচ্ছবি দেখতে পান? মুশফিকের সহজ উত্তর, ‘না, আকবর যে জায়গায় আছে সেখানে আমি কখনো ছিলাম না। আকবরের মতো এত প্রতিভাবান আমি ছিলাম না। ও যে ইনিংসটা (ফাইনালে) খেলেছে সেটা অসাধারণ।’

ভারতের বিপক্ষে সে ফাইনালে ভীষণ চাপে ব্যাট করতে নেমেছিলেন আকবর। ম্যাচ জেতানো ওই ইনিংসের শুরুতে স্লগ সুইপ করে একটি ছক্কা মেরেছিলেন আকবর। মুশফিক এই চাপ সামলানো নিয়ে প্রশ্ন করলে আকবরের জবাব,’ওরা ফিল্ডিং ক্লোজ করেছিল। এক-দুই রান নেওয়ার সুযোগ ছিল না। ওই শটের পরই ওরা ফিল্ডার সরিয়ে নেয়।’

এই লাইভ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন স্বনামধন্য কোচ নাজমুল আবেদীন্ও। সাকিব-মুশফিকদের উঠে আসার পথটা সুগম হয়েছে তাঁর কোচিংয়েই। মুশফিকের শুরুর দিনগুলো নিয়ে তিনি বলেন, ‘ওর উচ্চতা নিয়ে আমার কখনো কিছু মনে হয়নি। মুশফিক সম্ভবত একমাত্র খেলোয়াড় যাকে দেখে মনে হয়েছিল এই ছেলেটা জাতীয় দলে খেলবে। সে কিন্তু শুরুতে উদ্ধোধনী ব্যাটসম্যান ছিল।’

আকবরকে নিয়ে মুশফিক বলেন, ‘আকবর পুরোপুরি ঈশ্বরপ্রদত্ত প্রতিভা। সে অনেক পরিণত। তবে এটা কেবল ‍শুরু। বাংলাদেশকে যেদিন বিশ্বকাপ জেতাতে পারবে সেদিন ওর দায়িত্ব শেষ হবে।’

মুশফিক ও আকবরের সঙ্গে ‘র‌্যাপিড ফায়ার’ নামে একটি মজার খেলাও খেলা হয়। কিছু প্রশ্নের দ্রুত ও সংক্ষিপ্ত জবাব দিতে হয়। রোনালদো না মেসি জিজ্ঞেস করতেই মুশফিকের উত্তর, ‘অবশ্যই মেসি।’ ওয়াসিম আকরাম ও ব্রেট লি-র মধ্যে ‘ওয়াসিম’ এবং শেন ওয়ার্ন ও মুরালিধরনের মধ্যে ‘ওয়ার্ন’কে বেছে নেন মুশফিক। মাধুরী দীক্ষিত ও দীপিকা পাড়ুকোনের মধ্যে ‘মাধুরী’কে পছন্দের কথা জানান তিনি।

আকবরের পছন্দ ‘ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।’ এমা ওয়াটসন ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলির মধ্যে পরেরজনকে পছন্দের কথা জানান আকবর।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © gtbnews24.com